শিরোনাম
চরভদ্রাসনে ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন জনসচেতনতা সভা জনগন এর ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করছি : কাদের মির্জা টেকনাফে রিপোর্টার্স ইউনিটি’র কমিটি গঠিত ইতালিতে মৃত্যুবরণকারী দানা মিয়ার পরিবারবারকে আর্থিক সহযোগিতা করেছে ভৈরব সমিতি ভেনিস নেত্রকোণায় রোড সেফটির দাবীতে জেলা প্রশাসকের কাছে এআরএফবির স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী সবসময় গরীবের সহায়তায় এগিয়ে আসেন-ময়মনসিংহে গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ রোজা হবে ৩০টি: জানিয়েছে সৌদি আরব ত্রিশালের মঠবাড়ীতে চেয়ারম্যান কদ্দুসের দেওয়া ঈদের নতুন শাড়ী-লুঙ্গী পেয়ে খুশী গরীব-দুস্থরা অসহায় দরিদ্রদের ইফতার বিতরণ করলেন রফিকুল ইসলাম পিন্টু কলমাকান্দায় ঈদ উপহার বিতরণ করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইউটিসিএল
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০১:৫৭ অপরাহ্ন

“সুজন মাহমুদ” এর লিখা কবিতা

সাহিত্য ডেস্ক / ১৬১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১

“মা-বাবাকে খুশি দেখতে-
মুখের দুটো ভালো কথায় যথেষ্ট”
-সুজন মাহমুদ

মা বাবা শব্দটা হয়তো ছোট অক্ষরেই লিখা যায়।
এই শব্দের বিবরণ দিতে কতগুলো শব্দ একত্রে করতে হয় তা আমার জানা নেই।

ধরুন কোনো আনন্দ মূহুর্তে যেকোনো আয়োজনে মা বাবাকে কমদামী কিছু একটা উপহার দিলে যে খুশিটা পাওয়া যায়! সেটা লক্ষ টাকা খরচ করলেও অন্য কারো কাছে আশা করাই বৃথা।

আমরা বড় হতে থাকি, আর শিক্ষা অর্জন করে শিক্ষিত নামটা নিজেদের নামের সাথে মিশিয়ে থাকি। অতঃপর বড় কোনো প্রোগ্রামে মা বাবাকে সাথে নিয়ে যেতে সাচ্ছন্দ্য বোধ করি না। বয়স হয়েছে, বুঝে কম- কখন কি বলে ফেলে কার সামনে! সব মিলিয়ে তাদের কখনও নিয়ে যাওয়া হয়না।।

এমনটা কেনো? আমাদের প্রতিটা সার্টিফিকেটের ভালো ভালো গ্রেট, মার্কসিটের ভালো পয়েন্ট গুলো কিন্তু মা- বাবার অবদান। আমাদের মা বাবা অল্প শিক্ষিত হয়েও আমাদের উচ্চশিক্ষিত করে গড়ে তুলেন। আমাদের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার কারিগর কিন্তু মা-বাবা। উনারা’ই আমাদের এই অব্দি উঠে দাঁড়ানোর দলিল।।

ওই যে বললাম, কমদামী কিছুতে মা-বাবা সবচেয়ে বেশি খুশি হন! উনারা দামটা দেখে না, দেখে আন্তরিকতা। কতটা ভালোবাসেন এখন অব্দি সেটা দেখেই খুশিতে আত্মহারা হয়ে মন থেকে যে দোয়াটা করে, সেটা অর্থের কাছে তুচ্ছ।

আপনার ভালো চাকরি নাই, ভালো সেলারি পান না_
ভালো কোনো কিছু কিনে দিতে হবে না, মুখের দুটো ভালো কথায় মা-বাবা অনেক খুশি। হাসিমুখে জিজ্ঞেস করেন তাদের খোঁজ খবর রাখেন।।

তাদের জন্ম দেয়া ঋণেরখাতা কোনোদিন অর্থ দিয়ে শোধ করতে পারবেন নাহ।
নিজে ভালো থাকুন। শত অন্যায়েও তাদের ভুল ধরা থেকে বিরত থাকুন। মা-বাবাকে খুশি রাখুন- এই দায়িত্ব আপনার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট