বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩০ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
ইতিহাস! অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে সিরিজ জিতলো বাংলাদেশ
এবি স্পোর্টস ডেস্ক / ৪৭ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা চার ম্যাচেই বাজেভাবে হারতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। এমন পরিসংখ্যান মোটেও পাত্তা পেলো না পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে।

টানা তিন ম্যাচে দাপট দেখিয়ে প্রথমবারের মতো অজিদের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ। মিরপুরে তৃতীয় ম্যাচে স্বাগতিকরা অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে ১০ রানে। তাতে দুই ম্যাচ (৩-০) হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

দেশের ক্রিকেটে ‘স্বর্ণের অক্ষরে লেখা দিন’ চাইলে হাতে গুণে গুণে বলে দেওয়া যায়। তাতে ৬ আগস্ট অর্থাৎ আজকের দিনটা লিখে রাখাই যায়। ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে প্রতাপশালী দলটির বিরুদ্ধে এই প্রথম এমন কীর্তি!

সিরিজ জয়ের ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশ পায় ১২৭ রানের পুঁজি। জবাবে অজিরা তুলতে পারল ১১৭ রান। তাতে ১০ রানের জয় পেয়ে যায় বাংলাদেশ। আর এই জয়ের মাধ্যমে অজিদের বিপক্ষে যেকোনো ফরম্যাটে ঐতিহাসিক সিরিজ জয়টাও ধরা দিল টাইগারদের হাতে। টানা তিন ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর ঘটনাও এই প্রথম।

বিকেল হতেই শুরু হয় ঝুম বৃষ্টি। অভিমানী মেঘ শঙ্কা জাগায় আদৌ হবে কি না ম্যাচ। বাংলাদেশের উৎসবের দিনের অপেক্ষা কি ভাসিয়ে নিয়ে যাবে বৃষ্টি? শঙ্কা জাগে এমনও। সেটা অবশ্য শেষ অবধি হয় না। কত কত দিনের অপেক্ষা ছিল এমন কিছুর, সেটা যদি বৃষ্টি ভাসিয়ে নেয় তাহলে কী করে হবে!

শেষ অবধি ম্যাচ শুরু হয় সোয়া এক ঘণ্টা পিছিয়ে। টস হয়। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সেটি জিতেন আট ম্যাচ পর। কিন্তু শুরুতেই শুরু হয় পুরোনো অস্বস্তি। ওপেনারদের ফর্ম ভাবনায় ছিল শুরু থেকেই। তারা পারেননি এদিনও।

দুই ওপেনারের বিদায়ে অবশ্য দ্রুতই কাটিয়ে ফেলেন দুই অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাকিব আল হাসান। তাদের ৪৪ রানের জুটি ভালো কিছুর বার্তাই দেয়। সাকিব ১৭ বলে ২৬ রান করে ফেরেন সাজঘরে। ভরসা হয়ে থেকে যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

তিনি টিকে ছিলেন ইনিংসের শেষ ওভার পর্যন্ত। প্রথম ইনিংসের পর তার ইনিংস নিয়ে ‘প্রশ্ন’ থাকতে পারে হয়তো। ম্যাচশেষে নিশ্চয়ই আর নেই। ৫৩ বলে ৫২ রানের ইনিংসটির গুরুত্বের কথা ম্যাচজয়ের পর বুঝতে পারার কথা।

গুরুত্ব অবশ্য ছিল দুইটি ছোট্ট ইনিংসেরও। দুটিই শেষ হয়েছে রান আউটে। ৫ বলে ১১ করা নুরুল হাসান সোহান আর ১৩ বলে ১৯ রান করা আফিফ হোসেন ‍দুজনই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন বাংলাদেশের ১২৭ রানের সংগ্রহে।

করোনাকালে বাংলাদেশ সফরে এসে শর্তের পর শর্ত দিয়ে আলোচনায় এসেছিল অস্ট্রেলিয়া। সব মেনেই আসতে দিয়েছে বাংলাদেশ। যেন পরিকল্পনাটি ছিল মাঠেই জবাব দেয়ার।

হলোও তাই। প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে ১৩১ রান করে অস্ট্রেলিয়াকে ১০৮ রানে বেঁধে তাদের বিরুদ্ধে প্রথম জয়টা পেয়েছিল টাইগাররা।

দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার টসে জিতে আর বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর ঝুঁকি নেয়নি। কিন্তু তাতে ম্যাচের ফলাফল পাল্টেনি। এবার বাংলাদেশ জিতল পরে ব্যাটিং করে, পাঁচ উইকেটে।

তখন অস্ট্রেলিয়ার কাছে তৃতীয় ম্যাচ হয়ে পড়ে বাঁচা মরার লড়াই। জানপ্রাণ দিয়ে লড়ে তৃতীয় ম্যাচে মাঝেমঝ্যে উজ্জ্বলতা ছড়ানো অস্ট্রেলিয়া শেষ পর্যন্ত হেরেই গেল। আর ৫ ম্যাচের সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ