বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৪ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
রাণীশংকৈলে চাঞ্চল্যকর আসাদুল হত্যা মামলার দুই আসামি গ্রেফতার
ঠাকুরগাঁও থেকে আনোয়ার হোসেন আকাশ / ১৩৫ Time View
Update : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে চাঞ্চল্যকর আসাদুল হত্যা মামলার মূল দুই আসামি রাজু (২২) ও নূর আলম (২৫) কে গ্রেফতার করেছে রাণীশংকৈল থানা পুলিশ।

আসাদুলের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন হওয়ার ৩দিন পর ২জনকে গ্রেফতার হওয়ার কথা জানান পুলিশ।

জানা যায়, রাণীশংকৈল থানা পুলিশের ফোর্স সমন্বয়ে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ৭ সেপ্টেম্বর আসাদুল হত্যার মূল পরিকল্পনাকারি আসামী পীরগঞ্জ উপজেলার সেনগাঁও উপদইল ফকিরগঞ্জ হাট গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে রাজু আহম্মেদ (২২) কে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানার কেওয়া দক্ষিনখন্ড গারোপাড়া গ্রামের রুবেল হোসেন এর অটো গ্যারেজ এর ভিতর থেকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

পরের দিন পীরগঞ্জ উপজেলার দানাজপুর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে নুর আলম (২৫) কে পীরগঞ্জের গোদাগাড়ি বাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়।

রানীশংকৈল থানা পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল লতিফ সেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,
গ্রেফতারকৃতদের গতকাল বৃহস্পতিবার ঠাকুরগাঁও জেলা জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এবিষয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ এসএম জাহিদ ইকবাল বলেন আসাদুলের হত্যাকান্ড জড়িত ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া গেছে তারা আসাদুলকে খুন করেছে। আরো তদন্ত করে দেখা হচ্ছে । গ্রেফতারকৃত রাজু ও নূর আলম দুজনে মাদক ব্যবসায়ী তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলাও রয়েছে।

প্রসঙ্গত, জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার বীরহলি গুড়িয়াপাড়া গ্রামের জুমার উদ্দীনের ছেলে আসাদুলকে গত ৪ আগষ্ট রাতে জবাই করে হত্যার পর পাশ্ববর্তী রাণীশংকৈল উপজেলার লেহেম্বা ইউনিয়নে পকম্বা গ্রামের একটি ব্রীজের নিচে ধান ক্ষেতে ক্ষতবিক্ষত মরদেহ ফেলে রাখে খুনিরা।

এনিয়ে নিহতের বাবা রাণীশংকৈল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় দু’ই উপজেলায় খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।রাণীশংকৈলে আসাদুল হত্যাকান্ড জড়িত ২ আসামি গ্রেফতার!

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়-সেদিন বিকেলে বন্ধুর ডাকে বোনের বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফেরেনি আসাদুল । সেদিন রাতেই পকম্বা গ্রামের বড় বিল ব্রিজের নিচে পাওয়া গেছে ক্ষত-বিক্ষত লাশ।

নিহতের বোন বিলকিস আকতার জানান, সেদিন বিকেলে আমার মাকে নেওয়ার জন্য আসাদুল আমাদের বাড়িতে আসে। কিন্তু হঠাৎ বন্ধুর ফোন পেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে সে আর বাড়ি ফেরেনি। সন্ধ্যায় তার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তাকে আর পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় কিছু জেলে বড় বিলে মাছ ধরতে গেলে লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। রাতেই পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

আসাদুল হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রানীশংকৈল উপজেলা পরিষদের সামনে প্রায় ১ ঘন্টা ব্যাপী এই মানববন্ধন করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ