রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৮ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচরের পুত্র তারিক রিফাত রাজাহার ইউনিয়নের নৌকার মাঝি হতে চায় আল ইমরান হাসিব
গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি / ১১৩ Time View
Update : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে লালন করে ও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করার দৃঢ় প্রত্যয়ে এবং উন্নয়ন ও সু-শাসন নিশ্চিত করতে দীর্ঘদিন ধরে নিজের কর্মকান্ডের ওপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখে আসন্ন রাজাহার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে নৌকার মাঝি হতে চান যুব সংগঠক ও তৃনমূলের আস্থাভাজন প্রিয় মুখ তারিক রিফাত।

তিনি ১৯৬৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের রাজাহার ইউনিয়নের প্রভুরামপুর গ্রামে এক সম্রান্ত মুসলিম পরিাবারে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মৃত আবু তাহের বিএসসি ও মাতা মোছাঃ বিলকিছ বেগম। পিতা মাতার চার ছেলে ও তিন বোনের মধ্যে তার অবস্থান তৃতীয়। ১৯৮৩ সালে গোবিন্দগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেনিতে পড়ার সময়ই তিনি জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে ছাত্রলীগে যোগ দেন। অংশগ্রহণ করা শুরু করেন বিভিন্ন রাজনৈতিক মিছিল মিটিংয়ে। তিনি ১৯৮৪ সালে এসএসসি, ১৯৮৬ সালে গোবিন্দগঞ্জ সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি এবং পরবর্তী পর্যায়ে ১৯৮৮ সালে গোবিন্দগঞ্জ সরকারি কলেজ থেকে বি.কম পাস করেন। ১৯৯২ সালে যুবলীগের রাজনীতিতে আরও বেশী সক্রিয় হন পরবর্তীতে বাংলাদেশ আওয়মীলীগ, রাজাহার ইউনিয়নে শাখার অর্থ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করে রাজাহার ইউনিয়ন আ’লীগ কে একটি শক্তিশালী ইউনিট হিসেবে গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন এই জনপ্রিয় নেতা।

মনোনয়ন পেলে বিজয়ের ব্যাপারে আপনি কতটুকু আশাবাদী জানতে চাইলে তারিক রিফাত বলেন, শতভাগ আশাবাদী। কারণ, রাজাহারের মানুষ জানে, আমার বাবা এবং আমি তাদের জন্য কি করেছি। জীবনে কিছু পাওয়ার জন্য রাজনীতি আমি করি না। আমার রাজনীতি হলো শুধু রাজাহারসহ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মাটি ও মানুষের মুখে হাসি ফোটানো।

আপনি যদি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তাহলে রাজাহারবাসীর জন্য কি করবেন জানতে চাইলে তারিক রিফাত বলেন, প্রিয় নেত্রী এবং দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় আর আল্লাহর রহমতে রাজাহার ইউনিয়নের জনগণের সহযোগিতায় আমি যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই তাহলে রাজাহার ইউনিয়নকে আমি এমনভাবে গড়ে তুলব যাতে রাজাহারের জনগণ গর্ব করে বলতে পারে, জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমি আমার বাবার যোগ্য সন্তান। দেশের অন্যান্য ইউনিয়ন থেকে ব্যতিক্রম করে রাজাহার ইউনিয়নকে আমি বিনির্মাণ করব ইনশাআল্লাহ। যুব সমাজের কর্মসংস্থানে পরিকল্পিতভাবে কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করব । সবাই কর্ম করলে একদিকে যেমন মাদকসহ অন্যান্য অপরাধ কমবে অন্য দিকে বেকার সমস্যাও দূর হবে।

রাজাহার ইউনিয়নবাসীর উদ্দেশ্যে আপনার বক্তব্য কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, বক্তব্য শুধু একটাই, আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন, পাশে থাকবেন। আমার বাবা যেমন আপাদের পাশে থেকে, ইউনিয়নের যেভাবে নতুন-নতুন রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান নির্মান করে অত্র এলাকাকে যোগাযোগ, শিক্ষা ব্যবস্থা ও অন্যান্য অবকাঠামোগত যে উন্নয়ন করে ইউনিয়নকে যেভাবে গড়ে তুলেছিলেন এবং আরও সমৃদ্ধশালী ইউনিয়ন গড়ার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন আমি তার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে চাই।

তারিক রিফাত ১৯৯৬ সালে রংপুুর যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে আত্ন কর্মসংস্থান মূলক প্রশিক্ষণ গ্রহন করে রাজাহার ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় বেকার যুবদের নিয়ে সমিতি গঠনের মাধ্যমে কৃষি, পশুপালন ও মৎস্য চাষের মাধ্যমে নিজে সাবলম্বী এবং যুব সমাজকে কর্মমূখী করে গড়ে তোলার কাজ অব্যাহত রাখছেন। তিনি এলাকা ছাড়াও উপজেলা ও জেলায় বিভিন্ন প্রশিক্ষনে প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এ সব কাজে বিশেষ অবদান রাখায় বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান তার কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ বিভিন্ন পুরস্কার এবং তরুন উদ্দ্যোক্তা হিসেবে সনদপত্র প্রদান করেছেন।

রাজনৈতিক জীবনে পরিবার থেকেই জনবান্ধব রাজনীতির হাতেখড়ি হয় তারিক রিফাতের । তারিক রিফাতের বাবা মৃত আবু তাহের বিএসসি এর রাজনীতির জীবন ছিল বর্ণাঢ্য ও ঐতিহ্যের। আলোয় আলোকিত।

তৎকালিন সময়ের রাজাহার ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও তারিক রিফাতের বাবা মৃত আবু তাহের বিএসসির রাজনৈতিক জীবনীতে রয়েছে ত্যাগ ও নির্যাতন স্বীকারের বিশাল একটি অজানা তথ্য যা আজও অনেকের কাছেই অজানায় রয়ে গিয়েছে। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর ছিলেন। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন সংগঠক ছিলেন।

যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের তার বাড়িতে থাকা-খাওয়াসহ বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা করেছিলেন। তিনি কৌশলে পাক বাহিনীর হাত থেকে অনেক মুক্তিকামী জনতাকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের কারনেই স্বাধীনতার পরে পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের দ্বারা নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ীর একটি মিটিং এ উপস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৌখিক নির্দেশে তৎকালীন মহকুমা প্রশাসক জায়েদি সাত্তার মহোদয় তারিক রিফাতের বাবা মৃত আবু তাহের বিএসসি কে লাইসেন্সপ্রাপ্ত একটি রিভলভার প্রদান করেন। যা তিনি আত্মরক্ষার জন্য সুস্থ্য সবল থাকা পর্যন্ত ব্যবহার করে গেছেন। মৃত্যুর আগে তিনি রিভলভারটি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন। ১৯৭২ সালে কিছু সময়ের জন্য মৃত আবু তাহের বিএসসি ইউনিয়ন পরিষদ প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭০-১৯৭৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, রাজাহার ইউনিয়ন শাখার সভাপতির দায়িত্বও অত্যান্ত নিষ্ঠার সাথে পালন করেন।

পরবর্তীতে রাজাহার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে ১৯৮৪-১৯৮৮ ইং সাল পর্যন্ত সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন। তৎকালীন সময়ে ইউনিয়নের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তার অবদান অনস্বীকার্য। ঐ সময় ইউনিয়ন পরিষদের কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করার জন্য ইউপি ভবন নির্মানের জন্য নিজস্ব ও তার পরিবারের ১ একর ৫০ শতক জমি প্রদান করেন। ইউনিয়নবাসীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য ক্লিনিক নির্মানসহ এলাকার মানুষের যাতায়াতের সুবিধার্থে অগনিত নতুন রাস্তা নির্মান, রিং কালভার্ট ও অন্যান্য অবকাঠামোগত উন্নয়নে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেন এই প্রয়াত নেতা আবু তাহের বিএসসি।

শিক্ষাক্ষেত্রেও তার বিশেষ অবদান রয়েছে। শিক্ষানুরাগী হিসেবে এলাকায় অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখনও শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিয়ে অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে।

২০১৬ সালের (৬ষ্ঠ ধাপ) ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যুব সংগঠক তারিক রিফাত মনোনয়ন পত্র দাখিল করার পর আ’লীগের মনোয়ন না পেয়ে দলের প্রতি অনুগত হয়ে এবং উপজেলা আ’লীগ এর বর্তমান সভাপতি মহোদয়ের নির্দেশে রাজাহার ইউনিয়নবাসীকে কাঁদিয়ে দলীয়সহ জনগণের ব্যাপক সমর্থন থাকা সত্বেও তিনি দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্রটি স্বেচ্ছায় প্রত্যাহার করে পরবর্তীতে আ’লীগের নৌকা মার্কার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে তাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করতে সহযোগিতা করে নিজ দলের জন্য আত্মত্যাগের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। দলের প্রতি ভালোবাসা ও তার এমন আত্মত্যাগের বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের দৃষ্টিতে আসবে এবং তাকে নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করে রাজাহার ইউনিয়নে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করবেন এমনটাই প্রত্যাশা রাজাহার ইউনিয়নের তৃনমূলের নেতাসহ সাধারন জনতার।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
https://www.youtube.com/watch?v=19_M-hSgAVU&t=116s
https://www.youtube.com/watch?v=19_M-hSgAVU&t=116s