বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০২ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
তাসকিনের খেলা দেখার জন্য বসে থাকব: মারিয়া নূর
স্পোর্টস ডেস্ক / ৫৫ Time View
Update : বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১

এবারের টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাংলাদেশের জন্য যেন এক হতাশার নাম। হার দিয়ে এই মিশন শুরু করা বাংলাদেশ সুপার টুয়েলভে গিয়ে চূড়ান্ত রকমে ব্যর্থ হয়েছে। এই রাউন্ডে প্রথম চার ম্যাচের সব কটিতেই হেরে এরইমধ্যে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছে বাংলাদেশ। এ অবস্থায় আজ বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় দুবাইতে নিয়ম রক্ষার শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে টাইগাররা। এই ম্যাচ এবং এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের পারফরমেন্স নিয়ে ঢাকা পোস্টের সঙ্গে কথা বলেছেন দেশের ক্রিকেট অনুষ্ঠানের জনপ্রিয় সঞ্চালক ও অভিনেত্রী মারিয়া নূর।

শুরুতে আজকের ম্যাচ নিয়ে কথা বলেন মারিয়া, ‘সত্যি বলতে পুরো সুপার টুয়েলভেই তো আমরা হতাশাজনক পারফরমেন্স করেছি। আজকে শেষ ম্যাচটি অন্তত আমাদের জেতা উচিত। যা সামনের সিরিজ এবং আগামী বছরের বিশ্বকাপের জন্য দলকে ইতিবাচক অনুপ্রেরণা দেবে। আগামী বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে ম্যাচটি জেতার বিকল্প নেই। কিন্ত বাস্তবতা হলো বাংলাদেশ দল এখন যে অবস্থায় আছে সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে এই ম্যাচ জেতা খুবই কঠিন। অস্ট্রেলিয়ার জন্যও ম্যাচটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্য তারা সর্বোচ্চটা দিয়েই খেলবে। তাদের জেতার চান্সও বেশি। তবে দল হিসেবে খেলতে পারলে, নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে বাংলাদেশের পক্ষেও জেতা অসম্ভব কিছু নয়।’

এই ক্রিকেট সঞ্চালক-অভিনেত্রীর মতে, ‘আগামী বছরই কিন্তু পরবর্তী টি-২০ বিশ্বকাপ হবে অস্ট্রেলিয়ায়। আমাদের উচিত সেটার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া। আমার মনে হচ্ছে, দলের সিনিয়র-জুনিয়রদের মধ্যে বোঝাপড়ার একটা গ্যাপ আছে। টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গেও খেলোয়াড়দের গ্যাপ আছে। এই এক বছরের মধ্যে এসব গ্যাপ দূর করে সত্যিকারের দল হিসেবে আমাদের গড়ে উঠা উচিত। তা না হলে পরবর্তী বিশ্বকাপেও আমরা ভালো কিছু করতে পারব না।’

মারিয়া উদাহরণ টেনে বলেন, ‘আফগানিস্তানের মতো দল, যাদের কোনো হোম অব ক্রিকেটও নাই, তারা পর্যন্ত এবারের বিশ্বকাপে খুব ভালো খেলছে। অথচ আমরা কত পিছিয়ে আছি। আমরা আগেও এই ফরম্যাটে খুব একটা ভালো ছিলাম না। এত বছরেও উন্নতিও করতে পারিনি। এটা খুবই দুঃখজনক।’

মারিয়া নূর আরও যোগ করেন, ‘এই সব কিছুর মধ্যেও এবারের বিশ্বকাপে আমাদের আশার আলো হচ্ছে তাসকিন। তার পারফরমেন্স পুরো ওয়ার্ল্ডকাপেই দেখবার মতো ছিল। সারাক্ষণ দেখতাম সে ফেসবুকে হাডওয়ার্কের ছবি দিচ্ছে। তার প্রতিফলটা এবার মাঠে দেখতে পেলাম। বাজে সময়ের মধ্যেও এই বিশ্বকাপে আমাদের বড় প্রাপ্তি তাসকিন। জিতি আর না জিতি তাসকিনের খেলা দেখার জন্য বসে থাকব, মাহাদি হাসানের পারফরমেন্সের জন্য বসে থাকব। শুভকামনা থাকল টাইগারদের জন্য।’

 

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category