শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
ছয় বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রচারণায় পীরগঞ্জ আওয়ামীলীগের নেতারা
ঠাকুরগাঁও থেকে আনোয়ার হোসেন আকাশ / ৬৯ Time View
Update : শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নিয়ে প্রকাশ্যে প্রচারে অংশ নিচ্ছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। দিচ্ছেন দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে নানা বক্তব্যও। দলীয় পদ রক্ষায় কেউ কেউ আবার নৌকা প্রার্থীর সমাবেশে অংশ নিলেও সমাবেশ থেকে বের হয়েই বলছেন বিদ্রোহী প্রার্থীর কথা। দলীয় নেতাকর্মীদের এমন আচরণে অস্বস্তিতে আছেন ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের নৌকা মার্কা নিয়ে চেয়ারম্যান পদে অংশ নেওয়া প্রার্থীরা।

তৃতীয় দফা ইউপি নির্বাচনে ২৮ নভেম্বর পীরগঞ্জ উপজেলার ১০ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে প্রার্থিতা যাচাই বাছাই প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে।

আ’লীগের দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করতে ইউনিয়ন কমিটির সিদ্ধান্ত মতে জেলা কমিটির মাধ্যমে কেন্দ্রে নাম পাঠায় উপজেলা কমিটি। ৯ ইউনিয়নে দলের তৃণমূলের পাঠানো নামের তালিকা থেকে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হলেও হাজিপুর ইউনিয়নে প্রার্থী দেওয়া হয় কেন্দ্র থেকে। এ নিয়ে বিরোধ দেখা দেয় স্থানীয় আ’লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে।

এদিকে তৃণমূলের চুড়ান্ত করা নয় োইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে কয়েকজনকে স্থানীয় কিছু নেতাকর্মীদের পছন্দ না করায় তারা অবস্থান নেন দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে। বিকল্প প্রার্থী হিসেবে দলের অন্য নেতাকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করান তারা।

দলীয় প্রার্থী ছাড়াও উপজেলার পীরগঞ্জ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আ’লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা ফজলুল করিম, দৌলতপুর ইউনিয়নে ইউনিয়ন আ’লীগের কোষাধ্যক্ষ আফজাল হোসেন, খনগাঁও ইউনিয়নে ইউনিয়ন আ’লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ফজলুর রহমান, কোষারানীগঞ্জ ইউনিয়নে উপজেলা আ’লীগের স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান গৌতম চন্দ্রের ভাইপো বকুল চন্দ্র এবং হাজিপুর ইউনিয়নে ইউনিয়ন আ’লীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আ’লীগের দলীয় প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বিপ্লব উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি আখতারুল ইসলাম নেতাকর্মীদের নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করলেও উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের অনেক নেতাই কাজ করছেন বিদ্রোহীদের পক্ষে।

হাজিপুর ইউনিয়নের নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী জয়নাল আবেদিন জানান উপজেলা আ’লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আনছার আলী সাধারণ সম্পাদক গয়া নাথ যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলামসহ বেশ কয়েক নেতা বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ও নৌকা প্রতীক ভাঙচুর পোড়ানোর মামলায় চার্জশিটভুক্ত আসামি সিদ্দিকুরের নির্বাচনী সভায় প্রকাশ্যে বক্তব্য দিচ্ছেন। নৌকার বিরুদ্ধে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।

দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করা প্রসঙ্গে উপজেলা আ’লীগের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন আ’লীগের মনোনীত প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান এজন্য তারা সবাই সিদ্দিকুরের পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন ।

পীরগঞ্জ ইউনিয়নের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী অরুণ চন্দ্র রায় বলেন, নির্বাচনী সভায় দলের লোকজন বক্তব্য দিলেও কয়েকজন ভেতরে ভেতরে কাজ করছেন অন্য প্রার্থীর পক্ষে। কোষারানীগঞ্জ ইউনিয়নের আ’লীগের প্রার্থী আজাহারুল ইসলাম জানান, কিছু দলীয় লোক নৌকার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন দৌলতপুর ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থী সনাতন চন্দ্র রায় বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থী দিয়ে তাকে হারানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

উপজেলা আ’লীগের কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে দলের নেতাকর্মীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। একটি অংশের নেতৃত্বে আছেন সাবেক এমপি ও বর্তমান উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ইমদাদুল হক অপর অংশে আছেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি আখতারুল ইসলামের পক্ষে।

দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে নেতাকর্মীদের কাজ করা প্রসঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যান ও দলীয় নির্বাচন মনিটরিং কমিটির উপদেষ্টা আখতারুল ইসলাম বলেন আ’লীগের এক প্রভাবশালী নেতার নেতৃত্বে কিছু সুবিধাবাদী নেতা নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করছেন। তাদের চিহ্নিত করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করা হবে।

উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বিপ্লব বলেন আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। তবে নৌকার বিরুদ্ধে যারা প্রার্থী হয়েছেন এবং কাজ করছেন তাদের তালিকা করা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা নেতাদের কাছে নামের তালিকা পাঠানোর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার তকদীর আলী জানান ইউপি নির্বাচনে উপজেলার ১০ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫১জন সাধারন সদস্য পদে ৩৩৫ সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১০৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ২৮ নভেম্বর পীরগঞ্জ উপজেলার ১০ ইউনিয়নে ৯০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category