বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:২৭ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
ময়মনসিংহে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন
ময়মনসিংহ থেকে আরিফ রববানী / ৭১ Time View
Update : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

৫২তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে ময়মনসিংহে সর্বস্তরের মানুষ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। শনিবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনীর মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচী শুভ সূচনা হয়। সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে উত্তোলন করা হয় জাতীয় পতাকা।

শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিভাগীয় কমিশনারের পক্ষে বিভাগীয় কমিশনার শফিকুর রহমান, জেলা প্রশাসনের পক্ষে ডিসি এনামুল এর নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব),সমর কান্তি বসাক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) পুলক কান্তি চক্রবর্তী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি),পারভেজুর রহমান, বীর মুক্তিযাদ্ধাবৃন্দ এবং জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

এরপর পর্যায়ক্রমে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদের পক্ষ থেকে জাপা নেতা জাহাঙ্গীর আহমেদ এর নেতৃত্বে জেলা,মহানগর ও সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দ, জেলা পুলিশের পক্ষে পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান,জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড ইউনিট, জেলা পরিষদ, সিটি কর্পোরেশন, নৌ-পুলিশ, পিবিআই, সিআইডি, ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানা, আনসার ভিডিপি, সিভিল সার্জন ময়মনসিংহ , ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সকাল ৮টায় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর শান্তির প্রতিক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে পববর্তী কর্মসূচী শুর হয়।

জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার অংশগ্রহনে কুচকাওয়াজ এবং মনমুগ্ধকর শারিরীক কসরত প্রদর্শিত হয়। এসব পর্বে অংশগ্রহনকারী মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ অতিথিবৃন্দ।

পুরস্কার বিতরণ পূর্বে জেলা প্রশাসক এনামুল হক জাতির পিতাসহ সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বক্তব্যে বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলার নিপীড়িত জনগণ সশস্ত্রযুদ্ধে লীপ্ত হয়ে ছিনিয়ে আনেন স্বাধীনতার নতুন সূর্য। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পৃথিবীর বুকে রচিত হয় লাল-সবুজের পতাকা এবং প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ নামের নতুন ভুখন্ডের।

ডিসি বলেন সেদিন জাতির পিতার ডাকে সাড়া দিয়ে জীবন বাজি রেখে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল অকুতোভয় বীর বাঙালি। এ যুদ্ধছিল অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যয়ের যুদ্ধ, শোষণের বিরুদ্ধে শোষিতের যুদ্ধ, পরাধীনতার বিরুদ্ধে স্বাধীনতার যুদ্ধ এবং বঞ্ছনার বিরুদ্ধে অধিকার আদায়ের যুদ্ধ। সে যুদ্ধেই আমরা বিজয় ছিনিয়ে এনেছি। অনেক ত্যাগ ও রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই স্বাধীনতা আমাদেরকে উত্তেলিত করে মাথা উচুঁ করে বিশ্বের বুকে বাঁচতে শেখায়।

এরপর দিবসের কর্মসূচীর আলোকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। দুপুরে জেলা কারাগার, হাসপাতাল, শিশু পরিবারে উন্নত মানের খাবার পরিবেশন এবং বাদ জোহর মসজিদগুলো বিশেষ দোয়া, মন্দির, গীর্জাসহ অন্যান্য উপসানালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করে শীহদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়।

এদিকে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠন দলীয় কর্মসূচী পালন করেন। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। সকাল ৮টায় স্মৃতিসৌধে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category