মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
তজুমদ্দিনে জমে উঠেছে ঈদের বাজার
তজুমদ্দিন (ভোলা) থেকে এম নয়ন / ৭২ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

পছন্দের পোশাকের খোঁজে ক্রেতারা ছুটছে এক দোকান থেকে আরেক দোকানে। তাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে বিক্রেতারাও দোকানে নানা রঙের পোশাকের পসরা সাজিয়েছে। রমজানের শেষ এসে তজুমদ্দিনে ঈদের কেনাকাটা বেশ জমে উঠেছে। আর বিপণিবিতানগুলোতে ক্রেতা উপস্থিতি এবং বিক্রি বাড়ায় সন্তোষ প্রকাশ করছেন বিক্রেতারা। আর ক্রেতাদের এমন ভিড় চাঁদরাত পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন বিক্রেতারা।

গত দু বছর করোনা মহামারির কারণে ঈদের বাজার জমেনি। কর্ম হারিয়ে অনেকেই জীবন সংগ্রামে ছিলেন হতাশ। তবে এবারে সেই ধাক্কা সামলে ঈদের কেনাকাটার উদ্দেশ্যে প্রতিদিন তজুমদ্দিন উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল থেকেও বিপুলসংখ্যক ক্রেতা ভিড় জমাচ্ছে বিপণী গুলোতে।

ফলে সকাল থেকেই ক্রেতাদের পদচারণায় মুখর হয়ে পোশাকের দোকান গুলো। পিছিয়ে নেই জুতা ও কসমেটিকস দোকানও। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ক্রেতারা তাদের সাধ্য অনুযায়ী পছন্দসই পোশাক কিনতে ব্যস্ত থাকে। ফলে দিনভর বেচাকেনায় ব্যস্ত সময় পার করেন ক্রেতা-বিক্রেতারা।

এ ব্যাপারে আশিক গার্মেন্টস এর মালিক মো: খোকন মাহাজন বলেন, রোজার প্রথম ১৫ দিন বিক্রি ছিল না বললেই চলে। শুধু দেখতে আসতো। এখন মানুষ শুধু দেখতে আসছে না। পছন্দ ও দামে মিললে পণ্য কিনে নিচ্ছে। সামনে আরো বিক্রি বাড়বে বলে তাদের আশা। এ অবস্থায় এত দিন অনেকটা অলস সময় কাটালেও বর্তমানে কথা বলারও ফুসরত নেই বিক্রেতাদের। ২০ রোজার পরই ক্রেতা বেড়েছে, সামনে আরো বাড়বে। পুরুষদের পাঞ্জাবি ও চলছে বেশ। সর্ব নিম্ন ৮শ’ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকা দামের পাঞ্জাবি তাদের রয়েছে বলে আশিক গার্মেন্টসের মালিক মোঃ খোকন মাহাজন জানান।

তবে ক্রেতাদের অভিযোগ, এবারের কাপড়ের দাম চড়া। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক মহিলা ক্রতা জানান কাপড়, কসমেটিকস, জুতা সব পণ্যেরই দাম আগের তুলনায় অনেক বেশি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category