মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
বাঘায় ৪টি মাছের দাম ৪২ হাজার টাকা
মোস্তাফিজুর রহমান, রাজশাহী প্রতিনিধি / ১৮৫ Time View
Update : মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২

মামা, আমি দীর্ঘদিন থেকে মাছের ব্যবসা করিতো। আমার পিতাও মাছের ব্যবসা করতেন। মামা আমি প্রায় দিন বড় বড় মাছ নিয়ে এসে রাজশাহী অঞ্চলে বিক্রি করি। যানতে চাইলাম এই এলাকার মানুষ আপনার থেকে এত্ত দামে মাছ নেই? হাসি দিয়ে বলে, নেই মামা!কমবেশি যাই হোক এ অঞ্চলের মানুষ বড় মাছ পেলেই ক্রয় করেন। তবে কোন কোন সময় বেগ পোহাতে হয়। তবে বিক্রি হয় । বললাম কোথাই পেলেন এই মাছ? উত্তরে বলে, এই মাছ গুলো ফুলবাড়ি এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের ফুলছড়ি ঘাটে । এ মাছ চারটি বিক্রি করতে তেমন বেগ পেতে হয়নি।

কথা বলছি, রাজশাহীর বাঘার আড়ানী পৌর বাজারের গুড় বাজারে ৫২ কেজি ওজনের চারটি মাছ ৪১ হাজার ৬০০ টাকায় টাকায় বিক্রি হয়। বুধবার (১৫ জুন) সকাল প্রায় সাড়ে ১০টায় দিকে এই মাছ বিক্রি হয়।

জানা যায়, আবদুল মান্নান নামের এক মাছ ব্যবসায়ী চারটি মাছ ৩৫ হাজার টাকায় গাইবান্ধা জেলার ব্রহ্মপুত্র নদের ফুলছড়ি ঘাটে ক্রয় করেন। এ মাছ চারটি বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় আড়ানী পৌর বাজারে নিয়ে আসেন তিনি ।

এ সময় মাছ দেখার জন্য শত শত মানুষ ভিড় করতে থাকে। পরে আজাম্মেল হকসহ স্থানীয়রা ৮০০ টাকা দরে ক্রয় করেন। চারটি মাছের মধ্যে দুটি বোয়াল ও দুটি কাতলা মাছ ছিল। এর মধ্যে বোয়াল দুটির ওজন ২২ কেজি ও কাতলা দুটির ওজন ৩০ কেজি। আবদুল মান্নান গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার রসুলপুর গ্রামের মৃত আবদুস সুবানের ছেলে।

এ বিষয়ে মাছ ব্যবাসয়ী আবদুল মান্নান বলেন, আমি দীর্ঘদিন থেকে মাছের ব্যবসা করি। বড় মাছ পেলেই রাজশাহী অঞ্চলে নিয়ে বিক্রি করি। এ মাছ চারটি বিক্রি করতে তেমন বেগ পেতে হয়নি।
আড়ানী পৌর বাজার এলাকার আজাম্মেল হক বলেন, বড় মাছ দেখে প্রতিকেজি ৮০০ টাকা দরে আমরা কয়েকজন মিলে মাছ ক্রয় করে ভাগ করে নিয়েছি। মাছগুলো দেখে নদীর মাছ মনে হওয়া ক্রয় করেছি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ