শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English
রেল গেইটম্যান না থাকায় ট্রেনের ধাক্কায় আহত-৪
মোস্তাফিজুর রহমান, রাজশাহী প্রতিনিধি: / ২৯২ Time View
Update : শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

রাজশাহীর নন্দনগাছী রেলগেইট কুটিপাড়া নামক স্থানে ট্রেনের ধাক্কায় একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা খাদে পড়ে যায়। বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে রাজশাহী গামী একটি ট্রেনের ধাক্কায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় সিএনজি চালকসহ আরো তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে পরিষ্কার রহমান নামের এক ব্যাক্তির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে জরুরিভাবে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে পরিষ্কার রহমানের অবস্থা বেগতিক হলে আইসিইউ ভর্তি করা হয় ।

আহতরা হলেন, সিএনজি চালক লালপুর উপজেলার রামপাড়া গ্রামের মাহবুল হোসেন, বাঘা উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের ফতেপুর বাউসা গ্রামের পরিষ্কার রহমান (৪৫), তার স্ত্রী (পরিষ্কার এর) সাহেদা বেগম (৩৫) ও সন্তান সাহদত আলী (১৮)।

জানা যায়, সাহদত আলীর শ্বাসকষ্ট সমস্যার জন্য ল্যাব এইড ডায়াগনষ্টিক রাজশাহী’তে ডা. দেখানোর পর এই পরিবার বাড়ি ফিরছিলো । এমন সময় নন্দনগাছী রেলগেইট কুটিপাড়া নামক স্থানে রেল গেইটম্যানের ব্যবস্থা না থাকাই বে-খেয়ালী ভাবে সিএনজি রেল লাইন পার হতেই ট্রেনের ধাক্কায় সিএনজি খাদে পড়ে যায়।

সাহাদত হোসেন জানান, ট্রেন আসছিলো এইটা সিএনজি চালক বুজতে না পেরেই রেল লাইন পার হবার চেষ্টাকরে তবে বিষয়টি আমি বুজতে পেরেই মাকে নিয়ে গাড়ি থেকে লাফ দিই। ফলে আমার ও মায়ের বিভিন্ন স্থানে হালকা ক্ষত হয় তবে মায়ের কপালে বড় ধরনের আঘাত পাবার জন্য প্রায় ৬ টা সিলাই করতে হয়। আমার বাবার হাতে আমার শ্বাসকষ্টের ঔষুধ ও ১৫,০০০ টাকা ছিলো। সেই ঔষুধ, টাকা ও আব্বার ফোনটা হারিয়ে গেছে । আমার বাবা এখনো আইসিইউতে আছে। জানিনা বাবাকে বাঁচাতে পারবো কিনা। আপনারা সবাই আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন।

তাকে কে বা কারা এই মেডিকেলে নিয়ে আনলো এমন প্রশ্নের জবাবে সাহাদত উত্তর করেন, তখন রাত প্রায় ১১ টা বাজে। সেই স্থানে আমার পরিচিত কেউ ছিলো না। আমি নানান দিক ভেবে ৯৯৯ ফোন করি আর তাদের সহযোগীতা নিয়ে প্রায় ২০ মিনিটের মাঝে ফায়ার সাভির্স এসে আমাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাই। আর সিএনজি চালকের এক হাত গুরুতর ভাবে আঘাত পাই সেও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

স্থানীয়রা জানান, নন্দনগাছী রেলগেট কুটিপাড়া রেল ক্রসিংয়ে রেল কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যারিগেট বা রেল গেট মেন না দেয়ায় কয়েকদিন পর পর এ ধরনের রেল দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়। তাই এলাকাবাসীর দাবি রেল কর্তৃপক্ষ যেন অবিলম্বে ওই এলাকায় রেল ব্যারিগেট বা রেল গেইটম্যান স্থাপন করে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ